মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

একনজরে

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা, বঙ্গবন্ধু তনয়া গণপ্রজাতন্ত্রী বাংণাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বিশ্বনন্দিত নেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশকে 2021 সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং 2041 সালের মধ্যে উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্যকে সামনে রেখে এবং বাঙালি জাতিকে বিশ্বমানের প্রযুক্তিগত আধুনিক শিক্ষায় শত ভাগ শিক্ষিত করার প্রত্যয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী জনাব নুরুল ইসলাম নাহিদ এম.পি এর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় শিক্ষা ক্ষেত্রে ব্যাপক প্রসার ঘটানোর মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়নে ইইডি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

যুদ্ধ বিদ্ধস্ত বাংলাদেশের ভংগুর ও জরাজীর্ণ প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভৌত অবকাঠামো মেরামত ও সংস্কারের লক্ষ্যে সত্তর দশকের দিকে জনশিক্ষা পরিদপ্তরের অধীনে একটি প্রকৌশল শাখা প্রতিষ্ঠিত হয়। সে সময়ে এই পরিদপ্তরের অধিকাংশ প্রকল্প গৃহীত হতো বিভিন্ন দাতা সংস্থার আর্থিক সহায়তায়।

পরবর্তীতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন এবং এর বাস্তব সুবিধাদি বৃদ্ধির লক্ষ্যে ১৯৮২ খ্রি: সনে সার্বজনীন প্রাথমিক শিক্ষা প্রকল্পের অধীনে একটি প্রকৌশল শাখার সৃষ্টি হয় যা ১৯৮৬ খ্রি: সনে ৫৭১ জনবল নিয়ে ফ্যাসিলিটিজ ডিপার্টমেন্ট এবং ২০০২ খ্রি: সনে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর হিসেবে উন্নীতকরণ হয়। বর্তমানে এই অধিদপ্তরের ১৩৭০ সংখ্যক স্থায়ী জনবল দেশ ব্যাপি নিরলস পরিশ্রম করে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ, মেরামত ও সংস্কার এবং আসবাব পত্র সরবরাহ কাজে অবদান রেখে চলেছে।

দেশ আজ অনেক দূর এগিয়েছে। শিক্ষার্জনের জন্য শিক্ষালয় অপরিহার্য। আগের মত গাছতলায় মাদুর পেতে, ছন-মাটি-টিনের চালাঘরে ক্লাশ করা বর্তমানে প্রজন্মের কাছে কল্পনার ও অতীত। তাই শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে দৃষ্টিনন্দন একাডেমিক ভবন নির্মাণ, নতুন শিক্ষা প্রিতিষ্ঠান স্থাপন, বিদ্যমান শ্রেণীকক্ষ বর্ধিত করণ, ছাত্রাবাস / ছাত্রীনিবাস নির্মাণ, প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ, বিজ্ঞান ভবন নির্মাণ, বিদ্যমান ভবন সমূহের মেরামত ও আধুনিকায়নকরণ এবং আসবাবপত্র সরবরাহ সহ ভ্রাপক কর্মযজ্ঞ বাস্তবায়ন করছে। ইইডি’র প্রকৌশলীদের শ্লোগান-

’সবার জন্য শিক্ষা ও পরিবেশ বান্ধব

অবকাঠামো নির্মাণ।

কর্মযজ্ঞের তুলনায় শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের বর্তমান জনবল অপ্রতুল হওয়ায় প্রস্তাবিত ০৫ হাজার জনবল বিশিষ্ট একটি অর্গানোগ্রামের অনুমোদন সরকারের বিবেচনাধীন আছে।

 

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter